বিসিএস প্রস্তুতি: প্রাচীন সাহিত্যে ধারা ।

1.প্রশ্ন: বাংলা সাহিত্যের প্রধান প্রধান সাহিত্য ধারা কি কি?
 উঃ গীতিকবিতা, মহাকাব্য, উপন্যাস, গল্প, নাটক, প্রহসন, প্রবন্ধ, অভিসন্দর্ভ, সমালোচনা, পত্র সাহিত্য, জীবনী সাহিত্য ইত্যাদি।

 2.প্রশ্ন: মধ্যযুগের অন্যতম সাহিত্য ধারা কি কি ?
 উঃ বৈঞ্চব পদাবলী, জীবনী সাহিত্য, মঙ্গল কাব্য, কবিগান, পুঁথি সাহিত্য, অনুবাদ সাহিত্য, মর্সিয়া সাহিত্য ইত্যাদি।

 3.প্রশ্ন: আধুনিক যুগের সাহিত্য ধারা কি কি ?
 উঃ মহাকাব্য, গীতিকাব্য, উপন্যাস,নাটক, ছোটগল্প, প্রহসন,প্রবন্ধ, নিবন্ধ, অভিসন্দর্ভ, সমালোচনা, আত্মজীবনীমূলক সাহিত্য, পত্র সাহিত্য, গীতিনাট্য ইত্যাদি।

লোকসাহিত্য

1.প্রশ্ন: বাংলা সাহিত্যের শেকড় সন্ধানী সাহিত্য কি?
 উঃ লোকসাহিত্য।

 2.প্রশ্ন: লোক সাহিত্যের প্রাচীনতম সৃস্টি কি?
 উঃ ছড়া ও ধাঁ ধাঁ ।

 3.প্রশ্ন: Folklore society এর কাজ কি?
 উঃ লোকসাহিত্য চর্চা ও সংরক্ষন।

 4.প্রশ্ন: মহুয়া পালা কোন কাহিনী নিয়ে রচিত?
 উঃ বেদের এক অপূর্ব সুন্দরী কন্যা মহুয়ার সাথে বামনকান্দার জমিদার ব্রাহ্মন যুবক নদের চাঁদের প্রনয় কাহিনী।

 5.প্রশ্ন: মৈয়মনসিংহ গীতিকার অর্ন্তগত উল্লেখযোগ্য গীতিকাগুলো কি কি ?
 উঃ মহুয়া, চন্দ্রাবতী, কাজল রেখা, দেওয়ানা মদিনা প্রভৃতি।

 6.প্রশ্ন: দেওয়ানা মদিনা পালাটির রচয়িতা কে?
 উঃ মনসুর বয়াতি।

 7.প্রশ্ন: বাংলাদেশ থেকে সংগৃহিত লোক গীতিকা কয়ভাগে বিভক্ত?
 উঃ ৩ ভাগে। নাথ-গীতিকা, মৈয়মনসিংহ গীতিকা ও পূর্ববঙ্গ গীতিকা।

 8.প্রশ্ন: মৈয়মনসিংহ গীতিকা বিশ্বের কয়টি ভাষায় অনুদিত হয়েছে?
 উঃ ২৩ টি।

 9.প্রশ্ন: মৈয়মনসিংহ গীতিকার রচয়িতা কে?
 উঃ ড. দীনেশ চন্দ্র সেন।

 10.প্রশ্ন: মৈয়সনসিংহ গীতিকা কত সালে প্রথম প্রকাশিত হয়?
 উঃ ১৯২৩ সালে।

 11.প্রশ্ন: পদ বা পদাবলী বলতে কি বুঝায়?
 উঃ পদ্যাকারে রচিত দেবস্তুতিমূলক রচনা।

বৈষ্ণব পদাবলী

1. প্রশ্ন: বৈষ্ণব সাহিত্য কি?
 উঃ বৈঞ্চব মতকে কেন্দ্র করে রচিত সাহিত্যকে।

 2. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যর সূচনা ঘটে কবে?
 উঃ চর্তুদশ শতকে।

 3. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের বিকাশ কাল কখন?
 উঃ ষোড়শ শতকে।

 4. প্রশ্ন: শাক্ত পদাবলী কোন শতকের সাহিত্য ছিল?
 উঃ আঠারো শতক।

 5. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের আদি কবি কে কে?
 উঃ বিদ্যাপতি ও চন্ডীদাশ।

 6. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের চতুষ্টয় কে কে?
 উঃ বিদ্যাপতি, চন্ডীদাস, জ্ঞানদাস ও গোবিন্দ দাস।

 7. প্রশ্ন: বিদ্যাপতি ও চন্ডীদাশ কোন শতকের কবি?
 উঃ চর্তুদশ শতক।

 8. প্রশ্ন: জ্ঞানদাস ও গোবিন্দ দাস কোন শতকের কবি?
 উঃ ষোড়শ শতক।

 9. প্রশ্ন: বিদ্যাপতি কোন ভাষায় বৈষ্ণব পদাবলী রচনা করেছেন?
 উঃ ব্রজবুলী ভাষায়।

 10. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবালী সাহিত্যের উল্লেখ্যযোগ্য কবি কে কে?
 উঃ বিদ্যাপতি, চন্ডী দাস, জ্ঞানদাস, গোবিন্দ দাস, যশোরাজ খান, চাঁদকাজী, রামচন্দ বসু, বলরাম দাস, নরহরি দাস, বৃন্দাবন দাস, বংশীবদন, বাসুদেব, অনন্ত দাস, লোচন দাস, শেখ কবির, সৈয়দ সুলতান, আলাওল, দীন চন্ডীদাস, চন্দ্রশেখর, হরিদাস, শিবরাম, করম আলী, পীর মুহম্মদ, হীরামনি, ভবানন্দ প্রমুখ।হরহরি সরকার, ফতেহ পরমানন্দ, ঘনশ্যাম দাশ, গয়াস খান ।
 
 11. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য মুসলিম কবি কে কে?
 উঃ আলাওল, সৈয়দ সুলতান, আকবর, ফয়জুল্লাহ, ্আফজল, সালেহ বেগ, নাসির মাহমুদ, সৈয়দ আইনুদ্দীন, গয়াস খান, ফাজিল, নাসির মহম্মদ, আলীরজা, করম আলী।
 
 12. প্রশ্ন: বৈষ্ণব পদাবলীর প্রধান অবলম্বন কি কি?
 উঃ রাধাকৃষ্ণের প্রেমলীলা।

 13. প্রশ্ন: অধিকাংশ বৈষ্ণব পদাবলী কোন ভাষায় রচিত হয়েছে?
 উঃ ব্রজবূলী ভাষায়।

 14. প্রশ্ন: শাক্ত পদাবলীর উল্লেখ্যযোগ্য কবি কে কে?
 উঃ রামপ্রসাদ সেন, রাজা কৃষ্ণচন্দ্র, আলীরজা, কমলাকান্ত, নন্দকুমার প্রমুখ।

মঙ্গলকাব্য

1. প্রশ্ন: মঙ্গলকাব্যের উপজীব্য কি ?
 উঃ ধর্মবিষয়ক আখ্যান। দেবদেবীর গুনগান মঙ্গলকাব্যর উপজীব্য। স্ত্রী দেবীদের প্রধান্য এবং মনসা ও চন্ডীই এদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ।

 2. প্রশ্ন: মঙ্গলকাব্য প্রধানত কত প্রকার ও কি কি?
 উঃ মঙ্গল কাব্য প্রধানতঃ দু’প্রকার। যথা- (ক) পৌরাণিক মঙ্গলকাব্য ও (খ) লৌকিক মঙ্গলকাব্য।

 3. প্রশ্ন: উল্লেখ্যযোগ্য পৌরাণিক মঙ্গলকাব্য কি কি?
 উঃ অন্নদামঙ্গল, কমলামঙ্গল, দূর্গামঙ্গল।

 4. প্রশ্ন: সর্বাপেক্ষা প্রাচীনতম মঙ্গলকাব্য ধারা কোনটি?
 উঃ মনসামঙ্গল।

 5. প্রশ্ন: সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় মনসামঙ্গল কাহিনী কোনটি?
 উঃ চাঁদ সাগরের বিদ্রোহ ও বেহুলার সতীত্ব কাহিনী।

 6. প্রশ্ন: মনসামঙ্গল কাব্য কোন দেবীর কাহিনী নিয়ে রচিত?
 উঃ দেবী মনসা’র কাহিনী।

 7. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের উল্লেখযোগ্য চরিত্র কি?
 উঃ মনসাদেবী, চাঁদ সুন্দর, বেহুলা, লক্ষ্মীন্দর।

 8. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের আদি কবি কে?
 উঃ কানা হরিদত্ত।

 9. প্রশ্ন: কোন রাজার সময় মনসা মঙ্গল কাব্য রচিত হয়?
 উঃ সুলতান হুসেন শাহের সময়ে।

 10. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের অন্যতম কবি নারায়ন দেবের জন্মস্থান কোথায়?
 উঃ বর্তমান কিশোরগঞ্জ জেলায়।

 11. প্রশ্ন: কবি নারায়ন দেবের কাব্যের নাম কি?
 উঃ পদ্মপুরাণ।

 12. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের অন্যতম কবি বিজয় গুপ্তের জন্ম স্থান কোথায়?
 উঃ বরিশাল জেলার বর্তমান গৈলা গ্রামে এবং প্রাচীন নাম ফুলশ্রী।

 13. প্রশ্ন: মনসা বিজয়’ কাব্যগ্রন্থের রচিয়তা কে?
 উঃ বিপ্রদাস পিপিলাই, ১৪৯৫ সালে প্রকাশিত হয়।

 14. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের সুকণ্ঠ গায়ক হিসেবে কোন কবির বিশেষ খ্যাতি ছিল?
 উঃ দ্বিজ বংশীদাস।

 15. প্রশ্ন: দ্বিজ বংশীদাস কোথায় জন্মগ্রহন করেন?
 উঃ কিশোরগঞ্জ জেলার পাতুয়ারী গ্রামে।

 16. প্রশ্ন: মনসামঙ্গলের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি ক্ষেমানন্দের উপাধি কি ছিল?
 উঃ কেতকা দাস।

 17. প্রশ্ন: চন্ডীমঙ্গল কাব্যের আদি কবির নাম কি?
 উঃ মানিক দত্ত।

 18. প্রশ্ন: কোন শতকে চন্ডীমঙ্গল কাব্যর সর্বাধিক প্রসার ঘটে?
 উঃ ষোড়শ শতকে।

 19. প্রশ্ন: চন্ডীমঙ্গল কাব্যর রচনাকাল কত সময় পর্যন্ত বিস্তৃত?
 উঃ ষোড়শ থেকে আঠার শতক পর্যন্ত।

 20. প্রশ্ন: চন্ডীমঙ্গল কাব্য ধারার সর্বশ্রেষ্ট কবি কে?
 উঃ কবি কবিকঙ্কন মুকুন্দ রাম চক্রবর্তী।

 21. প্রশ্ন: কবি মুকুন্দ রাম কোথায় জন্মগ্রহন করেন?
 উঃ বর্ধমান জেলার দামুন্যা গ্রামে।

 22. প্রশ্ন: কবি মুকুন্দ রাম কার সভাসদ ছিলেন?
 উঃ মেদিনীপুর জেলার অড়বা গ্রামের জমিদার রঘুনাথের।

 23. প্রশ্ন: মুকুন্দ রামকে কে কেন কবিকঙ্কন’ উপাধি দেন ?
 উঃ জমিদার রঘুনাথ শ্রী শ্রী চন্ডীমঙ্গল কাব্য রচনার জন্য।

 24. প্রশ্ন: মুকুন্দ রামের চন্ডীমঙ্গল কাব্যর অন্যান্য নাম কি কি?
 উঃ অভয়ামঙ্গল, অধিকামঙ্গল, গৌরিমঙ্গল, চন্ডীমঙ্গল, প্রভৃতি।

 25. প্রশ্ন: চন্ডীমঙ্গলের উল্লেখ্যযোগ্য কবির নাম কি?
 উঃ দ্বিজ রামদেব, মুক্তারাম সেন, হরিরাম, ভবানীশঙ্কর দাস, অকিঞ্চন চক্রবর্তী প্রমুখ।

 26. প্রশ্ন: ধর্মমঙ্গল কাব্যের কাহিনী কয়টি এবং কি কি?
 উঃ দুটি। যথাঃ (ক) রাজা হরিশ্চন্দ্রের কাহিনী এবং (খ) লাউসেনের কাহিনী।

 27. প্রশ্ন: ধর্মমঙ্গল কাব্যের আদি কবি কে?
 উঃ ময়ূর ভট্ট।

 28. প্রশ্ন: হাকন্দপুরান’ কার রচিত কাব্য গ্রন্থ?
 উঃ ময়ূর ভট্ট।

 29. প্রশ্ন: শ্যাম পন্ডিত কে ছিলেন?
 উঃ ধর্মমঙ্গলের অন্যতম কবি।

 30. প্রশ্ন: নিরঞ্জন মঙ্গল কার কাব্য গ্রন্থের নাম?
 উঃ শ্যাম পন্ডিত।

 31. প্রশ্ন: সা’ বারিদ খান রচিত মঙ্গল কাব্যর নাম কি?
 উঃ বিদ্যাসুন্দর।

 32. প্রশ্ন: কবিরঞ্জন’ কোন কবির উপাধি?
 উঃ রাম প্রসাদ সেন।

 33. প্রশ্ন: রাম প্রসাদ সেনকে কে কবিরঞ্জন’ উপাধি প্রদান করেন?
 উঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।

 34. প্রশ্ন: রাম প্রসাদ সেনের কাব্য গ্রন্থের নাম কি?
 উঃ কবিরঞ্জন।

 35. প্রশ্ন: অষ্টাদশ শতক বা মধ্যযুগের শ্রেষ্ঠ কবি হিসেবে কোন কবি সুপরিচিত?
 উঃ ভারতচন্দ্র রায় গুনাকর।

 36. প্রশ্ন: অন্নদামঙ্গল কাব্যগ্রন্থের রচয়িতা কে?
 উঃ ভারত চন্দ্র।

 37. প্রশ্ন: ভারতচন্দ্র কে কে রায় গুণাকর’ উপাধি প্রদান করেন?
 উঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।

 38. প্রশ্ন: ভারতচন্দ্র কার সভাকবি ছিলেন?
 উঃ নবদ্বীপের রাজা কৃষ্ণচন্দ্র।

 39. প্রশ্ন: ভারত চন্দ্র রায় রচিত মঙ্গল কাব্যর নাম কি?
 উঃ অন্নদামঙ্গল কাব্য।

 40. প্রশ্ন: ভারতচন্দ্র রায় গুণাকরের জন্মস্থান কোথায়?
 উঃ হাওড়া জেলার পেঁড়ো (পান্তুয়া) গ্রামে।

 41. প্রশ্ন: কোন কবির জীবানাবসানের মাধ্যমে মধ্যযুগের অবসান হয়েছে?
 উঃ কবি ভারত চন্দ্র রায় গুনাকর।

মর্সিয়া সাহিত্য

1.প্রশ্ন: মর্সিয়া সাহিত্য কি ?
 উঃ এক ধরনের শোককাব্য।

 2.প্রশ্ন: মর্সিয়া কথাটি এসেছে কোন ভাষা থেকে ? এর অর্থ কি ?
 উঃ আরবী ভাষা থেকে; এর অর্থ শোক প্রকাশ করা।

 3.প্রশ্ন: কোন মতবাদ প্রসারের ফলে মর্সিয়া সাহিত্য সৃষ্টির অনুকুল হয়েছে ?
 উঃ শিয়া মতবাদ।

 4.প্রশ্ন: কাশিমের লড়াই মার্সিয়া কাব্যের রচয়িতা কে?
 উঃ অষ্টাদশ শতকের কবি শেরবাজ।

 5.প্রশ্ন: বাংলা সাহিত্যে মর্সিয়া সাহিত্য ধারার প্রথম কবি কে এবং তাঁর কাব্যের নাম কি?
 উঃ শেখ ফয়জুল্লাহ, জয়নবের চৌতিশা।

 6.প্রশ্ন: মর্সিয়া সাহিত্য ধারার অন্যতম হিন্দু কবি কে এবং তাঁর কাব্যের নাম কি?
 উঃ রাঁধাচরণ গোপ, ইমামগণের কেচ্ছা ও আফৎনামা।

পুঁথি সাহিত্য

1.প্রশ্ন: শায়ের কারা?
 উঃ পুঁথি সাহিত্যের রচয়িতার শায়ের বলা হয়।

 2.প্রশ্ন: পুঁথি সাহিত্যের প্রথম সার্থক কবির রচয়িতা কে?
 উঃ ফকির গরীবুল্লাহ।

 3.প্রশ্ন: উল্লেখযোগ্য শায়েরের নাম কি?
 উঃ ফকির গরীবুল্লাহ, সৈয়দ হামজা, মালে মুহম্মদ, আয়েজুদ্দিন, মুহম্মদ মুনশী, দানেশ প্রমুখ।

 4.প্রশ্ন: পুঁথি সাহিত্যে কোন কোন ভাষার সংমিশ্রন ঘটেছে?
 উঃ আরবী, ফার্সি, বাংলা, হিন্দি, তুর্কি প্রভৃতি।

 5.প্রশ্ন: কালুগাজী ও চন্দ্রাবতী কোন ধরনের সাহিত্য?
 উঃ পুঁতি সাহিত্য।

 6.প্রশ্ন: পুঁথি সাহিত্যের প্রথম সার্থক ও জনপ্রিয় কবি কে ছিলেন?
 উঃ ফকির আবদুল্লাহ।

 7.প্রশ্ন: ফকির আবদুল্লাহর শ্রেষ্ঠ কবি প্রতিভা কোন গ্রন্থে বিধৃত?
 উঃ ইউসুফ- জুলেখা।

 8.প্রশ্ন: প্রনয়োপখ্যান জাতীয় উল্লেখযোগ্য পুথি সাহিত্য কি কি ?
 উঃ ইউসুফ- জুলেখা, সয়ফুলমূলক- বদিউজ্জমান, লায়লী-মজনু, গুলে-বকাওলী।

 9.প্রশ্ন: যুদ্ধ সম্পর্কিত উল্লেখযোগ্য পুঁথি সাহিত্য কি কি ?
 উঃ জঙ্গনামা, আমীর হামজা, সোনাভান, কারবালার যুদ্ধ ইত্যাদি।

 10.প্রশ্ন: পীর পাঁচালী বিষয়ক উল্লেখযোগ্য পুঁথি সাহিত্য কি কি ?
 উঃ গাজী-কালু চম্পাবতী, সত্য পীরের পুঁথি ইত্যাদি।

নাথ সাহিত্য

1.প্রশ্ন: নাথ সাহিত্য কি?
 উঃ বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগে শিব উপাসক এক শ্রেণীর যোগী সম্প্রদায়ের নাথ ধর্মের কাহিনী অবলম্বনে রচিত কাব্য।

 2.প্রশ্ন: নাথ সাহিত্যের উল্লেখ্যযোগ্য কবি কে কে?
 উঃ শেখ ফয়জুল্লাহ, ভীমসেন রায় ও শ্যামাদাস সেন।

 3.প্রশ্ন: গোরক্ষ বিজয়র রচিয়তা কে?
 উঃ শেখ ফয়জুল্লাহ।

 4.প্রশ্ন: শেখ ফয়জুল্লাহ গোবক্ষ বিজয় কার মুখে শুনে পুস্তকাকারে লিপিবদ্ধ করেন?
 উঃ ভারত পাঁচাল রচয়িতা কবিন্দ্রের মুখে।

 5.প্রশ্ন: ময়নামতি বা গোপীচন্দ্র অবলম্বনে রচিত গান প্রথম কে সংগ্রহ করেন?
 উঃ জর্জ গিয়ার্সন। ১৮৭৮ সালে রংপুর থেকে।

 6.প্রশ্ন: ময়নামতি গোপীচন্দ্রের গান কাব্যের উল্লেখযোগ্য রচিয়তা কে কে?
 উঃ দুর্লভ মল্লিক, ভবানীদাস ও শুকুর আহমেদ।

 7.প্রশ্ন: গোরক্ষ বিজয় এর উপজীব্য বিষয় কি?
 উঃ নাথ বিশ্বাস জাত যুগের মহিমা এবং নারী ব্যভিচারপ্রধান সমাজচিত্রের বর্ণনা।

 8.প্রশ্ন: শেখ ফয়জুল্লাহ রচিত গ্রন্থের সংখ্যা কয়টি ও কি কি?
 উঃ ৫টি। যথা- (ক) গোরক্ষ বিজয় বা গোর্খ বিজয় (খ) গাজী বিজয় (গ) সত্যপরী (ঘ) জয়নালের চৌতিশা (ঙ) রাসানাম।

 9.প্রশ্ন: মীনচেতন কে রচনা করেছেন ?
 উঃ শ্যামাদাস সেন।

 10.প্রশ্ন: মীনচেতন কে সম্পাদনা করেছেন ?
 উঃ ডঃ নলীনিকান্ত ভট্টশালী।

রোমান্টিক প্রণয়োপখ্যান

1. প্রশ্ন: মধ্যযুগে বাংলা সাহিত্যে মুসলিম কবিগণের সর্বাপেক্ষা উল্লেখ্যযোগ্য অবদান কি?
 উঃ রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান।

 2. প্রশ্ন: মধ্যযুগে ফারসি ভাষা থেকে অনুদিত প্রণয়োপাখ্যানগুলো কি কি?
 উঃ ইউসুফ-জুলেখা, লাইলী-মজনু, গুলে বকাওয়ালী, সয়-ফুলমুলুক বদিউজ্জামাল,

 3. প্রশ্ন: মধ্যযুগে হিন্দী ভাষা থেকে অনুদিত প্রণয়োপাখ্যানগুলো কি কি?
 উঃ পদ্মাবতী, সতী ময়না লোরচন্দ্রনী, মধুমালতী, মৃগাবতী ইত্যাদি।

 4. প্রশ্ন: গুলে বকাওয়ালী কে রচনা করেন?
 উঃ নওয়াজিশ আলী খান।

 5. প্রশ্ন: গুলে বকাওয়ালী অন্য কোন কবি রচনা করেন?
 উঃ মুহাম্মদ মুকিম।

 6. প্রশ্ন: সয়ফুলমুলুক বদিউজ্জামাল কাব্যের কাহিনী কি?
 উঃ আরবীয় উপন্যাস বা আলীফ লায়লা।

 7. প্রশ্ন: সয়ফুলমুলুক বদিউজ্জামাল কে রচনা করেন?
 উঃ আলাওল।

 8. প্রশ্ন: সয়ফুলমুলুক বদিউজ্জামাল অন্য কোন কোন কবি রচনা করেন?
 উঃ দেনা গাজী চৌধুরী, ইব্রাহিম ও মালে মোহম্মদ।

 9. প্রশ্ন: সপ্তপয়কর কে রচনা করেন?
 উঃ আলাওল।

 10. প্রশ্ন: সপ্তপয়কর কোন কবির রচনার ভাবানুবাদ?
 উঃ পারস্যর কবি নিজামী গঞ্জভীর সপ্তপয়কর কাব্যের।

 11. প্রশ্ন: লাইলী মজনু কে রচনা করেন?
 উঃ বহরাম খান।

 12. প্রশ্ন: ইউসুফ-জুলেখা কে রচনা করেন?
 উঃ শাহ মুহম্মদ সগীর।

 13. প্রশ্ন: ইউসুফ-জুলেখা অন্য কোন কোন কবি রচনা করেন?
 উঃ আব্দুল হাকিম, গরীবুল্লাহ, গোলাম সাফাতউল্লাহ, সাদেক আলী ও ফকির মুহাম্মদ।

কবিওয়ালা বা কবিগান

1. প্রশ্ন: কবিগানের উৎপত্তি ও বিকাশ কোন শতক পর্যন্ত ?
 উঃ ১৮ শতাব্দীর প্রথমার্ধ থেকে ১৯ শতাব্দীর প্রথমার্ধে।

 2. প্রশ্ন: কবিগানের উল্লেখ্যযোগ্য কবিওয়ালের নাম কি কি?
 উঃ গোঁজলাই গুই, ভরানী বেনে, হরু ঠাকুর, কেষ্টা মুচি, ভোলা ময়রা, এন্টনী ফিরিঙ্গি, নিতাই বৈরাগী প্রমুখ।

 3. প্রশ্ন: কবিগানের আদিগুরু হিসেবে পরিচিত কে ?
 উঃ গোঁজলা গুঁই।

 4. প্রশ্ন: গোঁজলা গুই এর উল্লেখযোগ্য শিষ্য কে কে ?
 উঃ লালু নন্দলাল, রঘুনন্দ, রামজীবন দাস প্রমুখ।

 5. প্রশ্ন: বাংলা টম্পাগানের জনক কে ছিলেন?
 উঃ নিধু বাবু।

 6. প্রশ্ন: নানা দেশের নানান ভাষা, বিনে স্বদেশী ভাষা পুরে কি আশা। এটির রচয়িতা কে?
 উঃ নিধু বাবু।

 7. প্রশ্ন: টম্পা গান থেকে আধুনিক বাংলা সাহিত্যের কোন ধারার সুত্রপাত?
 উঃ বাংলা গীতিকবিতা।

 8. প্রশ্ন: কবিওয়ালাদের মধ্যে সবচেয়ে খ্যাতি কে অর্জন করেছিল?
 উঃ ভবানী বেনে।

 9. প্রশ্ন: কবিগানের কয়টি বিভাগ কি কি?
 উঃ ৪টি। বন্দনা, সখী সংবাদ, বিরহ ও খেউর।

 10. প্রশ্ন: হরু ঠাকুরের প্রকৃত নাম কি?
 উঃ হরেকৃষ্ণ দিঘাড়ী।

 11. প্রশ্ন: কবিয়াল কেষ্ট মুচির প্রকৃত নাম কি?
 উঃ কৃষ্ণচন্দ্র চর্মকার।

 12. প্রশ্ন: কবিগানের বিশেষ গৌরবের যুগ কত সাল পর্যন্ত বি¯তৃত ছিল?
 উঃ ১৭৩০-১৮৩০ সাল পর্যন্ত।

 13. প্রশ্ন: কবিওয়ালাদের মধ্যে সবচেয়ে আধুনিক মানসিকতা লালন করতেন কে?
 উঃ রাম বসু।

 14. প্রশ্ন: কবিওয়ালদের মধ্যে পর্তুগীজ খ্রিষ্টান কে ছিলেন?
 উঃ এন্টনি ফিরিঙ্গি।

আরো পড়ুন:

https://joba2z.com/job-solution-কিভাবে-১-মাসে-শেষ-করা-যায/

বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটের কোনো কনটেন্ট অন্য কোন ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা দণ্ডনীয় অপরাধ। ইতিমধ্যে থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। কেউ এই ওয়েবসাইটের কনটেন্ট কপি করে নিজের নামে চালিয়ে দিলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on telegram
Telegram
Share on email
Email
Share on twitter
Twitter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Posts

Latest Jobs

সকল কবি সাহিত্যিক লেখকের সাহিত্যকর্ম মনে রাখার উপায় !

সকল কবি সাহিত্যিক লেখকের সাহিত্যকর্ম মনে রাখার উপায় ! ইসমাইল হোসেন সিরাজীর উপন্যাস মনে রাখার সহজ উপায়: রানুর ফিতা ১। রা – রায় নন্দিনী ২।

Read More »

সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে ৭১ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত। সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে মোট ৯ টি পদে ৭১ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আবেদন শুরু-২৯ ডিসেম্বর

Read More »

প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ে ৩৮ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত। আবেদন শুরু-১৫ ডিসেম্বর, ২০২০ সকাল ১০ টা থেকে। আবেদন শেষ- ৪ জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫ টা। আবেদন করতে

Read More »

শক্তির উৎস

শক্তির উৎস শক্তির প্রধান উৎস (prime sources of energy) সূর্যই প্রায় সকল শক্তির উৎস । এছাড়াও পরমাণুর অভ্যন্তরে নিউক্লিয়াসের নিউক্লিয় শক্তি ও  পৃথিবীর অভ্যন্তরে অবস্থিত উত্তপ্ত গলিত

Read More »

বিশ্বসভ্যতা (A 2 Z)। ২০০ MCQ

বিশ্বসভ্যতা পৃথিবী এ পর্যন্ত পাড়ি দিয়েছে চারটি বরফ যুগ ও চারটি আন্তঃবরফ যুগ। প্রতি যুগেই উষ্ণ অঞ্চলে গিয়ে টিকে থাকা প্রাণীদের দেহের আকৃতিতে কিছু পরিবর্তন

Read More »

সকল কবি সাহিত্যিক লেখকের সাহিত্যকর্ম মনে রাখার উপায় !

সকল কবি সাহিত্যিক লেখকের সাহিত্যকর্ম মনে রাখার উপায় ! ইসমাইল হোসেন সিরাজীর উপন্যাস মনে রাখার সহজ উপায়: রানুর ফিতা ১। রা – রায় নন্দিনী ২।

Read More »

সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে ৭১ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত। সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ে মোট ৯ টি পদে ৭১ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আবেদন শুরু-২৯ ডিসেম্বর

Read More »

প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ে ৩৮ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত। আবেদন শুরু-১৫ ডিসেম্বর, ২০২০ সকাল ১০ টা থেকে। আবেদন শেষ- ৪ জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫ টা। আবেদন করতে

Read More »

শক্তির উৎস

শক্তির উৎস শক্তির প্রধান উৎস (prime sources of energy) সূর্যই প্রায় সকল শক্তির উৎস । এছাড়াও পরমাণুর অভ্যন্তরে নিউক্লিয়াসের নিউক্লিয় শক্তি ও  পৃথিবীর অভ্যন্তরে অবস্থিত উত্তপ্ত গলিত

Read More »

বিশ্বসভ্যতা (A 2 Z)। ২০০ MCQ

বিশ্বসভ্যতা পৃথিবী এ পর্যন্ত পাড়ি দিয়েছে চারটি বরফ যুগ ও চারটি আন্তঃবরফ যুগ। প্রতি যুগেই উষ্ণ অঞ্চলে গিয়ে টিকে থাকা প্রাণীদের দেহের আকৃতিতে কিছু পরিবর্তন

Read More »